alik-sukh

                     গল্পের নাম- অলীক সুখ


একটা শক্ত কাঠের চেয়ারে সুভাষিনী বসে আছে, তার আঁচলটা মাটিতে লুটিয়ে আছে, টেবিলে কিছু ছেড়া কাগজ,  আর কিছু স্মৃতির ক্যানভাস, সুভাষিনী চোখ দুটির আঙিনায় জলবিন্দু টলমল করছে !

সে লিখতে শুরু করল............
 
প্রিয়তম  আমার,
তোমার সাথে যেদিন প্রথম ঘর বাঁধার আশায় বেরিয়ে এসেছিলাম, একরোখা জীবন থেকে বেঁচে ফিরতে মুক্তির উন্মাদনায় নিজেকে নিমজ্জিত করেছিলাম,

সেদিন বুঝিনি !যা আজ বুঝেছি।
হটকারিতার ওই  একটা সিদ্ধান্ত আমাকে প্রতিটি মুহূর্তে তীরের ফলার মতো বিঁধে। 

 আমার  শিরা ধমনী তে  বারেবারে প্রবল হিমশিলাপাত এসে হানা দেয়। 

আয়োজনে বিশ্বাস না করে, বিরম্বনাৱ এক চিলতে সুখ কিনতে গিয়ে ফেরারি পথে আমি ভ্রাম্যমান হয়েছিলাম।
প্রেম তরঙ্গের বৈতরণীর ঢেউ গুনে ছিলাম।

কিন্তু বোধ আমার চেতনায় প্রকাশ পায়নি, উন্মাদনায় মত্ত আমি মুক্তির স্বাদ পেতে গিয়ে  আজ অন্তিমে  এসে পৌঁছেছি! 

মরুভূমির মরীচিকার  উদাহারণ আমি আমার জীবনকে বাজি রেখে  জানতে পেরেছি।

শান্তি আর সুখ আমাকে আজও ক্ষমা করেনি। তাই অশান্তি আর দুঃখ ভরা বেদনা কে সঙ্গী করে, পিতৃলোক দ্বারে আজ আমি করজোড়ে উপস্থিত হয়েছি!

হঠাৎ করে এতটা  দমকা হাওয়া  আমার সাজানো সংসার কে ভেঙ্গে তছনছ করে দেবে আমি ভাবিনী।

সেদিনের সেই তুমি কি উদার, কি প্রসারিত, কি স্বচ্ছ, তার পরেই ঘটল ঘটনার  ঘনঘটা!!

যেদিন তোমার প্রেমিকার দেওয়া লাল রঙের ঠোঁটের প্রতিচ্ছবি, আর সুগন্ধ দেওয়া ভাঁজ করা নীল খামের মধ্যে থেকে চিঠিটা পেলাম, তখন ও নিজের চোখকে আমি আমার শত্রূ বলে ভেবেছিলাম। নেকড়ের হন্যে ছিন্নভিন্ন সন্দেহ আমাকে স্পর্শ করতে পারেনি।

কিন্তু আজ যখন তোমার জামায় আটকে থাকা কানের দুলটা আমার আঙ্গুলের ভাজে আটকে গেল, তখন বুঝেছি এবার সময় এসেছে তোমার আঙ্গুলের সাথে সম্পর্ক ছিন্ন করার। কিন্তু যে ভালোবাসা নিঃশ্বাস-প্রশ্বাস হৃদস্পন্দনের সাথে আটকে আছে তা কি করে শেষ হবে? তাই গল্পের ভূমিকা লিখলেও উপসংহার লেখার দুঃসাহস আমার আজ নেই !

আমার এই চিঠি পড়ে তুমি কি করবে আমি জানিনা। তবে যদি পারো তাহলে আমার তৈরি করা স্বপ্নের পাহাড় টাকে ধ্বংস করে দিও!
ইতি তোমার,
তোমার অতি প্রিয়,
সুভা......!!

******************************************************

কলমে- সাথী মহাপাত্র

11 Comments

Please do not enter any spam link in the comment box.

Post a Comment

Please do not enter any spam link in the comment box.

Previous Post Next Post